করোনা পরিস্থিতির কারণে সংকটময় সময়ে কৃষকের ধান কেটে ঘরে তুলে দিলেন শেরপুরের ছাত্রলীগ সদস্যরা। গত শনিবার ৯ই মে শেরপুর ছাত্রলীগের  ২০ সদস্যের একটি স্বেচ্ছাসেবি দল জেলা কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ সহ শেরপুর সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখা ছাত্রলীগ স্বেচ্ছাসেবীর একটি দল শেরপুর জেলা শহরের পৌর এলাকার মীরগঞ্জ মহল্লার থানাঘাট এলাকার ১ অসহায় কৃষকের রোজা রেখে প্রায় ৮ কাঠা পরিমান  ধান কেটে মাড়াই করে কৃষকের ঘরে তুলে দিয়েছেন তারা। 

ছাত্রলীগ নেতা মুজিব টেক সলিডারকে বলেন, জাতিরপিতা বঙ্গবন্ধুর আদর্শ আমাকে এটাই শিক্ষা দেয় যে আর্ত মানবতার সেবায় নিজকে নিয়োজিত করাই হচ্ছে রাজনীতি।জননেত্রী শেখ হাসিনার আহবানে সাড়া দিয়ে ছাত্রলীগের একজন ক্ষুদ্র কর্মী হিসেবে মানুষের পাশে দাড়াতে পেরে আমরা গর্বিত। তিনি আরো বলেন রাজনীতির প্রকৃত অর্থ নিহিত মানবসেবায়। সামনের দিন গুলোতেও ধানকাটা এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।
ধান কাটতে আসা ছাত্রলীগ নেতা শাহিদুর রহমান শাহিন টেক সলিডারকে  আরো বলেন, করোনা পরিস্থিতির কারণে কৃষক এখন সংকটময় সময় পার করছে। শ্রমিকের অভাবে তারা তাদের পেকে যাওয়া ধান ঘরে তুলতে পারছে না। তাই আমরা এই সংকটময় সময়ে অসহায় মানুষদের পাশাপাশি অসহায় কৃষকদের পাশে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত এই কার্যক্রম চালিয়ে যাবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন তারা। শুধু এই পরিস্থিতিতে না সব সময় কৃষকের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন তারা। ছাত্রলীগ সবসময় অসহায় মানুষের পাশে ছিল, আছে এবং থাকবে।
ধান কাটার সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের শেরপুর জেলা শহরের কেন্দ্রীয় রাজনীতির সাথে জড়িত ছাত্রলীগ নেতা মুজিবুর রহমান মুজিব, শাহিদুর রহমান শাহিন, জহির রায়হান, রাকিবুল ইসলাম সুমন, মুক্তাদির, সুমন, অন্তর, রিপন প্রমুখ এবং শেরপুর সরকারি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নয়ন তালুকদার, সাধারন সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস মোয়াজ, তারভীর আহম্মেদ পাপ্পু,  বিপুল,  লোকমান, রাকিব, শান্ত, রহুল, তপু প্রমুখ।